কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত

ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সটি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং-এর একটি ডিপ্লোমা কোর্স। ডিপ্লোমা-ইন কম্পিউটার টেকনোলজি কি? এবং কেন পড়বেন?

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - আজকের আইডিয়ার পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত নিয়ে আলোচনা করব।

কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

বেশির ভাগ ছাত্র-ছাত্রীর লক্ষ্য তাদের পড়াশোনা শেষ করে ভালো চাকরি পাওয়া। আর বর্তমান সময়ে সরকারি - বেসরকারি যে কোনো সেক্টরে চাকরি করতে হলে কম্পিউটার জ্ঞান খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে।

কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি?

যে কোনো কম্পিউটার কোর্সে শিক্ষার্থীর সার্টিফিকেট থাকলে সে সহজেই ভালো চাকরি পেতে পারে। এই ডিপ্লোমা কোর্সে রয়েছে সার্টিফিকেট কম্পিউটার কোর্স এবং ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স। শিক্ষার্থীরা সাধারণত দ্বাদশ পাস করার পরই ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্সে ভর্তি হয়। এখানে আমরা কিছু প্রধান ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স সম্পর্কে কথা বলব যা শিক্ষার্থীরা 12 তম এর পরে করতে পারে।

কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স

বর্তমান সময়ে যেকোনো ক্ষেত্রে চাকরি পেতে কম্পিউটার জ্ঞান এবং কম্পিউটার কোর্স সার্টিফিকেট থাকা বাধ্যতামূলক হয়ে পড়েছে। আপনি যদি প্রাইভেট সেক্টরে চাকরি করতে যান, তবুও আপনাকে একটি ভালো কম্পিউটার কোর্সের সার্টিফিকেট দেখাতে হবে।

আর অনেক সরকারি চাকরির জন্যও কম্পিউটার কোর্সের সার্টিফিকেট এবং এর পরীক্ষা দিতে হয়। শিক্ষার্থীরা কম্পিউটার সম্পর্কিত বিভিন্ন ডিপ্লোমা কোর্স করতে পারে এবং এর সাথে সম্পর্কিত ক্ষেত্রে একটি ভাল ক্যারিয়ার তৈরি করতে পারে।

প্রধান কিছু কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স

কম্পিউটার কোর্সে বিভিন্ন ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্সের নামকরণ করা হয়েছে, যার মধ্যে কয়েকটি প্রধান নাম নিম্নরূপঃ

  • Diploma in Animation & VFX
  • Diploma in Digital Marketing
  • Diploma in Mobile Application Development
  • Diploma in web Designing and Development
  • Diploma in Software Engineering
  • Diploma in Hardware Engineering
  • Diploma in Graphic Designing
  • MS office Certification Program
  • Computer Aided Design and Drawing
  • etc.

এবার আসুন একের পর এক এই বিভিন্ন ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স সম্পর্কে সংক্ষেপে জানি।

অ্যানিমেশন এন্ড ভিএফএক্সে ডিপ্লোমা

অ্যানিমেশন কোর্স কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্সে বিশেষীকরণের একটি প্রধান ক্ষেত্র হয়ে উঠছে। আসলে এটা গ্রাফিক ডিজাইনিং এর একটি অংশ। কিন্তু অনেক শিক্ষার্থী কম্পিউটারে এই কোর্সটিকে স্পেশালাইজেশন হিসেবে বেছে নেয়।

এটি সাধারণত ১ বছর মেয়াদী একটি ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স। বর্তমান সময়ে, এটি টিভিতে কার্টুন অ্যানিমেশন ইত্যাদিতে ব্যবহৃত হয়। মুভি ইত্যাদিতে ভিজ্যুয়াল ইফেক্টের জন্য ভিএফএক্স এবং অ্যানিমেশন ব্যবহার করা হয়।

ভিএফএক্স Professional (freelance), VFX Expert, Film Animationist, Visual Effects Expert, Trainer, Creative Head  ইত্যাদির মতো এই কোর্সের পরে অনেক কাজ পাওয়া যায়। বর্তমানে এটির চাহিদা প্রচুর।

ডিজিটাল মার্কেটিং ডিপ্লোমা

ডিজিটাল মার্কেটিং একটি বিশাল এবং বিস্তৃত ক্ষেত্র এবং এর সাথে এটি কম্পিউটার কোর্সের মধ্যে সবচেয়ে অনন্য কোর্সের মধ্যেও পড়ে। কন্টেন্ট রাইটিং, সোশ্যাল মিডিয়া, ইমেইল মার্কেটিং, মার্কেটিং অ্যানালিটিক্সের মতো অনেক কিছুই ডিজিটাল মার্কেটিং এর কম্পিউটার কোর্সের আওতায় আসে।

বিশেষ করে ব্যবসার জন্য বা ব্র্যান্ডের প্রচার ইত্যাদির জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং খুবই ভালো। আপনি যদি কোন অনলাইন কাজের সাথে যুক্ত হন যেমন ব্লগিং ইত্যাদি, তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং এ ডিপ্লোমা করা আপনার জন্য খুবই উপকারী হবে।

ডিজিটাল মার্কেটার, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার, এসইও কনসালটেন্টের মতো এই কম্পিউটার কোর্সের পরে অনেক কাজের অফার পান। এছাড়াও এই কোর্স শেষে আপনি ফ্রিল্যান্সিং ও করতে পারবেন।

মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্টে ডিপ্লোমা

বর্তমান সময়ে স্মার্টফোনের ব্যবহার সম্পর্কে আমরা সবাই সচেতন। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা বিপুল। আর এ কারণেই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের সংখ্যা বেশি। স্বল্পমেয়াদী মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট ডিপ্লোমা কোর্স 6 মাস পর্যন্ত হতে পারে।

বর্তমানে এটিও কম্পিউটার সম্পর্কিত ক্যারিয়ারের একটি ভালো ক্ষেত্র। এই ডিপ্লোমা কোর্সের পরে, শিক্ষার্থীরা অ্যাপ্লিকেশন ডিজাইনার, ইউজার ইন্টারফেস ডিজাইনার, অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপার, উদ্যোক্তা, অ্যাপ পরীক্ষকের মতো কাজের জন্য যেতে পারে।

ওয়েব ডিজাইনিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপ্লোমা

ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্সে এটিও একটি ভালো অপশন। এটি সাধারণত 3-6 মাসের একটি ডিপ্লোমা কোর্স হতে পারে, যদিও এর সময়কাল ১ বছর পর্যন্ত যেতে পারে। এই কম্পিউটার কোর্সে শুধুমাত্র ওয়েবসাইট তৈরি এবং রক্ষণাবেক্ষণ সম্পর্কে শেখানো হয়।

ইন্টারনেটের ক্রমবর্ধমান ব্যবহার, প্রতিটি ছোট-বড় ব্যবসা অনলাইনে স্থানান্তরিত হচ্ছে। এজন্য সবাইকে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে, যার জন্য ওয়েব ডিজাইনার এবং ডেভেলপারদের নিয়োগ দেওয়া হয়।

এই কোর্সের পরে কেউ ওয়েব ডিজাইনার (ফ্রিল্যান্সিং বা এজেন্সি/এমএনসিগুলির জন্য), ওয়েব ডেভেলপার, ইউএক্স ডিজাইনার, গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর মতো কাজের করতে পারবেন।

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপ্লোমা

সফ্টওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিপ্লোমা করার পরে, আপনাকে প্রধানত কম্পিউটার প্রোগামিং এর উপর এক্সপার্ট হতে হবে। আপনি শুধুমাত্র কম্পিউটার ভাষা ব্যবহার করে সফটওয়্যার ডেভেলপার করতে পারেন।

সফ্টওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে শুধুমাত্র দীর্ঘমেয়াদী ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য পরামর্শ করা হয়, যাতে ভবিষ্যতে শিক্ষার্থী'রা একটি ভাল জায়গায় বা একটি ভাল কোম্পানির জন্য কাজ করতে পারে।

হার্ডওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপ্লোমা

কম্পিউটারের সফটওয়্যারের পাশাপাশি হার্ডওয়্যারের সঠিক জ্ঞানও সমান গুরুত্বপূর্ণ। এটিও একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং ভালো ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স। হার্ডওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স কম্পিউটার হার্ডওয়্যার যেমন মনিটর, সিপিইউ ইত্যাদির সাথে সম্পর্কিত।

হার্ডওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ডিপ্লোমা করার পরে যে ক্যারিয়ারের অনেক অপশন পাওয়া যায় তার মধ্যে রয়েছে বেসরকারি কম্পিউটার সংস্থা এবং সার্ভিস স্টেশনগুলিতে চাকরির সুযোগ।

গ্রাফিক ডিজাইনিং ডিপ্লোমা

Creative শিক্ষার্থীদের জন্য গ্রাফিক ডিজাইনিং ডিপ্লোমা কম্পিউটার হতে পারে সেরা অপশন। বর্তমান সময়ে, গ্রাফিক ডিজাইনিং অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।

গ্রাফিক ডিজাইনিংয়ে ডিপ্লোমা করার পর, শিক্ষার্থীরা গ্রাফিক্স ডিজাইনার (ফ্রিল্যান্সিং বা কর্পোরেট দলের জন্য), Brand identity manager, Printing specialist, Creative director, Digital magazines  বা অন্যান্য প্রকাশনা সংস্থার মতো কাজের জন্য যেতে পারে।

এমএস অফিস সার্টিফিকেশন প্রোগ্রাম

কম্পিউটারে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত টুলের মধ্যে MS Office এর নাম আসে। গ্রাহক অনেক কাজে ব্যবহার করা হয় যেমন MS Word, MS Powerpoint এবং MS Excel ইত্যাদি। আপনি অবশ্যই এসব নাম শুনেছেন বা এসবে কাজ করেছেন।

এমএস অফিস সার্টিফিকেশন প্রোগ্রামে, বিশেষ করে এমএস অফিস এবং এর সমস্ত সরঞ্জাম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে শেখানো হয়। হাসপাতাল, শিল্প, রেস্তোরাঁ, স্কুল/কলেজ ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে ডেটা পরিচালনা করার জন্য এমএস অফিস বিশেষজ্ঞদের প্রয়োজন।

Computer Aided Design and Drawing

এই কম্পিউটার কোর্সটি কম্পিউটারের কারিগরি শিক্ষার সাথে সম্পর্কিত। কারিগরি ক্ষেত্রে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্সে এই কোর্সটি করতে পারেন। মেকানিক্যাল বা ইলেকট্রিক্যাল ট্রেডের সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং এর ছাত্ররাও এই কম্পিউটার কোর্স করতে পারে। এই ডিপ্লোমা কোর্সে কম্পিউটার থেকে ডিজাইনিং এবং ড্রয়িং শেখানো হয়, যা অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।

এগুলি ছিল কয়েকটি প্রধান কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্সের বিকল্প। যাইহোক, এগুলি ছাড়াও, ডিপ্লোমা এবং অ্যাডভান্সড ডিপ্লোমা স্তরে আরও অনেক কম্পিউটার কোর্স পাওয়া যায়, যা শিক্ষার্থীরা তাদের আগ্রহ এবং ক্যারিয়ার অনুসারে বেছে নিতে পারে।

উপসংহার

এই আর্টিকেলে, আমরা কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স সম্পর্কে কথা বলেছি। এখানে আমরা কিছু প্রধান ডিপ্লোমা কম্পিউটার কোর্স সম্পর্কে জেনেছি, যেগুলো বর্তমান সময়ে বেশ জনপ্রিয়। অনেক শিক্ষার্থী এই কম্পিউটার কোর্সগুলি করে এবং এর পরে তারা ভাল একটি চাকরিতে যোগ দেয়।

আপনার আসলেই আজকের আইডিয়ার একজন মূল্যবান পাঠক। কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত, কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত, কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত, কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত, কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত, কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স কি? কেন পড়বেন বিস্তারিত
পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না।

comment url