ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

আজকে মূলত আমরা ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে চলেছি, একই সাথে ইমেইল অ্যাড্রেস বা ইমেইল আইডি কত প্রকার ও কি কি? তো চলুন।

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - দেশি ব্লগর পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে আলোচনা করব।

ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

বর্তমান সময়ের যুগ স্মার্টফোনের যুগ, আপনি যেহেতু এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। তারমানে আপনার হাতে একটা স্মার্ট ফোন রয়েছে। আর আপনি যদি একজন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আপনার একটা ইমেইল অ্যাড্রেস প্রয়োজন।

ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

প্রতিটা ডিভাইসের জন্য ইমেইল এড্রেস খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আজকে মূলত আমরা ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে চলেছি, একই সাথে ইমেইল অ্যাড্রেস বা ইমেইল আইডি কত প্রকার ও কি কি? তো চলুন বেশি কথা না বলে ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাক।

ইমেইল মানে কি | ইমেইল ঠিকানা কি

ইমেইল মানে কি বা ইমেইল ঠিকানা কি হয়তো আমরা অনেকেই জানিনা। ইমেইল হল এক ধরনের অনলাইন ফ্রি সার্ভিস, যার মাদ্ধমে আপনি আপনার পরিচিত অন্য আরেক জনের  ইমেইলে আপনার Text, Photo, Video, File ইত্যাদি পাঠাতে পারবেন। 

তবে সহজ ভাষায় সহজভাবে বলতে গেলে বলতে হয়। আমরা যেমন আগেকার দিনে একজন আরেকজনের কাছে চিঠি পাঠাইতাম আর এখন ওই চিঠি কাজ করা হয় ইমেইল এড্রেসের মাধ্যমে। তবে এর কার্যকারিতা অনেক ফাস্ট। একই সাথে এটার ফেসিলিটি অনেক বেশি।

আপনার তোলা ছবি ভিডিও কয়েক সেকেন্ডের ভিতরে বিশ্বের যেকোনো জায়গায় পাঠিয়ে দিতে পারবেন। ধরে নেন, আপনার বিয়ের ভিডিও রেকর্ড করছেন। এখন আপনি চাচ্ছেন প্রবাসে আপনার এক বন্ধুকে পাঠাবেন। তার ইমেইল এড্রেসে কয়েক মিনিটের ভিতর পাঠিয়ে দিতে পারবেন। এটাই হচ্ছে ই-মেইলে সবথেকে বড় পাওয়ার বা ক্ষমতা।

ইমেইল অ্যাড্রেস কেন প্রয়োজন

যতই দিন যাচ্ছে ততোই ইমেইল অ্যাড্রেসের ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ছে। কারণ আপনি বর্তমান সময় অনলাইনে আপনি যাই ব্যবহার করতে যান না কেন ইমেইল অ্যাড্রেস এর প্রয়োজন হবে। পোস্টের শুরুতেই বলেছি, যদি আপনার হাতে একটা স্মার্টফোন থাকে।

তাহলে অবশ্যই আপনার একটা ইমেইল অ্যাড্রেসের প্রয়োজন হবে। যখনই আমরা মার্কেট থেকে একটা নতুন ফোন কিনি, শুরুতেই আমাদের একটা ইমেইল এড্রেস দিয়ে ফোন চালু করতে হয়। তা না হলে আপনি ফোন অন করতে পারবেন না। এটা মূলত আমার আপনার নিরাপত্তার জন্যই।

কিন্তু আমরা এটা বুঝিনা, একই সাথে আমরা এটা নিয়ে সমস্যায় পড়ি। আমাদের সঠিক ইমেইল অ্যাড্রেস না থাকার কারণে। তবে আমরা খুব শীঘ্রই আমাদের ওয়েবসাইটে সঠিক ইমেইল অ্যাড্রেস খোলার সঠিক পদ্ধতি শেয়ার করব।

ইমেইল অ্যাড্রেস এর অংশ কয়টি

ইমেইল ঠিকানা দুইটি অংশে বিভক্ত। প্রথম অংশটি হল ব্যবহারকারী নাম। যেমন, আমার ইমেইল অ্যাড্রেস এর নাম:- Md Julhas Uddin. আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস এর নাম অবশ্যই আপনার নাম হবে, অথবা আপনি যেটা দিবেন সেটাই আপনার ইমেইল এড্রেস এর নাম।

এর ঠিক পরপরই থাকে @ চিহ্নটি। এই চিহ্নটি প্রতিটা ইমেইল এড্রেসে থাকবে। এটা চাইলেও কেউ পরিবর্তন করতে পারবে না। যেমন, [email protected] তার পরে থাকে সংশ্লিষ্ট ব্যবহারকারীর প্রতিষ্ঠানের নাম। যা পাশের ইমেইল এড্রেসে দেখতে পাচ্ছেন।

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলে ইমেইল এড্রেস সম্পর্কে বেসিক কিছু ধারনা দিতে পেরেছি। ইমেইল এড্রেস সম্পর্কে যদি আপনার কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে পারেন। অবশ্যই কমেন্টের রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করব।

আপনার আসলেই দেশি ব্লগর একজন মূল্যবান পাঠক। ইমেইল অ্যাড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Next Post
কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না।

comment url